সংবাদ শিরোনাম :
সিলেটের বিভিন্ন সীমান্তের চোরাকারবারিদের দৌরাত্ম্যের ২য় পর্বে জৈন্তাপুর উপজেলা বড়লেখায় পুলিশের অভিযানে ২০০ পিস ইয়াবাসহ আটক ১ সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সচেতন নাগরিক ফোরামের মানববন্ধন পরিবেশ অধিদপ্তরের অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে সতর্ক থাকার আহবান চা কন্যার অজানা তথ্য নিয়ে আল ইকরাম নয়নের ভিডিও কন্টেন্ট সবজি ক্ষেতের জ্বালে আটকে পড়া দাঁড়াশ সাপ উদ্ধার দক্ষিণ সুরমা থেকে ডিবি পুলিশের অভিযানে ০৩ কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ি গ্রেফতার দক্ষিণ সুরমা থেকে ডিবি পুলিশের অভিযানে ০৩ কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ি গ্রেফতার ডিবির অভিযানে খালিঘাট বস্তাপট্টি শরিফ ও জামালের  জুয়ার আস্তানা থেকে  খেলার সামগ্রী সহ ৩ জুয়ারী গ্রেফতার! ঈদ ও নববর্ষের টানা ছুটিতে চায়ের রাজ্যে ঢল নেমেছে পর্যটকের অবশেষে দক্ষিণ সুরমার শীর্ষ জুয়ারী কাশেমসহ পুলিশের হাতে আটক-৬, এখনো বহাল নজরুল-জামাল-অন্তরের জুয়ার প্রতারণা,
সিলেটের খাদিমে সরকারি খাসজমি হরিলুটে ব্যস্ত ভূমিখেকোরা সহযোগিতার অভিযোগ পুলিশ পরিবেশ ভূমি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে

সিলেটের খাদিমে সরকারি খাসজমি হরিলুটে ব্যস্ত ভূমিখেকোরা সহযোগিতার অভিযোগ পুলিশ পরিবেশ ভূমি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে

এ এ রানা:: সিলেটের খাদিম নগরের এক সময়ের শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী, ভূমিখেকো, নব্য। সন্ত্রাসী, পুলিশের সোর্স পরিচয়দানকারী কে এই তারেক,তার খুটির জোর কোথায় জানতে চায় খাদিমের বহর কলোনীর নিরীহ নির্যাতিত ভূমিহীন সাধারণ মানুষ।

তারেকের নির্যাতনে অতিষ্ট এলাকাবাসী থানায় অভিযোগ দিয়েও পাচ্ছেননা কোন প্রতিকার, উল্টো তাদেরকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করার অভিযোগ স্থানীয়দের। তাদের অভিযোগ তারা তারেকের বিভিন্ন অপকর্মের বিরোদ্ধে থানায় অভিযোগ দিলেও সেগুলোর সরেজমিন তদন্তে আসেনা পুলিশ, বরং সুরমাগেইট ফাঁড়িতে যাওয়ার কথা বলা হয়। সেখানে যাওয়ার পর বিভিন্ন অজুহাতে অভিযোগ দাখিল হয়নি বলে জানানো হয় এবং তারেকের সাথে আপুষ মিমাংসা করতে তদন্ত কর্মকর্তার পক্ষ থেকে বাদীকে চাপ সৃষ্টি করা হয়।শুধু তাইনা তারেকের কাজে বাধা না দিতে নিষেধ করা হয়। অথচ তারেক কারো বিরোদ্ধে অভিযোগ দিলে সাথে সাথে পুলিশ তদন্ত করতে ঘটনাস্থলে চলে যায়, ফলে প্রশ্ন উঠেছে তারেকের খুঁটিরজোর কোথায়?

স্থানীয়দের অভিযোগ তারেকের মাধ্যমে পুলিশ মাদক,জুয়া, চোরাচালান, ভূমি ও টিলাখেকোর কাছ থেকে নিয়মিত বখরা আদায় করে সুবিধা নিচ্ছে তাই পুলিশ তারেকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা না নিয়ে তাকে সহযোগিতা করছে। পুলিশের এমন ভূমিকায় তারেক দিনদিন বেপরোয়া হয়ে উঠছে।

কিছুদিন আগে গত ১৯ নভেম্বর, তারেকের বিরোদ্ধে তালাশ টিভি ও হলি সিলেট এর অনলাইন সংস্করণে মাদকের সংবাদ প্রকাশিত হলে, এর জেরে তারেকের নেতৃত্বে ভেজাল প্রতিরোধ ফাউন্ডেশন শাহ্পরান থানা শাখার সভাপতি ও স্থানীয় সংবাদকর্মী মঈন উদ্দিন এর উপর প্রকাশ্যে দিবালোকে শাহপরান বাজারে সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে হামলা চালায়। ঘটনারদিন রাতে প্রতিকার চেয়ে মঈন উদ্দিন শাহ্পরান থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। সেই অভিযোগের তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয় সহকারী উপ পরিদর্শক মস্তফাকে তিনি সরেজমিন তদন্ত না করে শুধু মঈন উদ্দিনকে ফাড়িতে বলেন। মঈন উদ্দিন ফাড়িঁতে গেলে অভিযোগ হয়নি বলে তারেকের সাথে আপুষ করার কথা বলেন। তিনি আরো বলেন তারেকের কাজে বাধা না দিতে।

এরপর উল্টো তারেক মঈন উদ্দিন এর উপর মিথ্যা মামলা দিয়েছে সেই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সহকারী উপ পরিদর্শক আকবর তদন্ত করতে গেলে মঈন উনাকে তাহার অভিযোগের বিষয়টি অবগত করেন,পরে তিনিও তাকে সুরমাগেইট ফাড়িতে যেতে বলেন।

আরাফাত হোসেন তারেক বহর মৌজার ১৪২ নং দাগে সরকারী খাস জমি পাহাড়, বন, টিলা, দখল করে বসবাস করছে।

দীর্ঘদিন থেকে খাদিম এলাকার সরকারী খাস জমি জবর দখল করে নিচ্ছে একটি প্রভাবশালী চক্র। সেই চক্রের সদস্য তারেক। চক্রটি দখল পজিশনের জাল দলিল তৈরি করে আদালতে মামলা দায়ের করে, মামলা নিষ্পত্তি হওয়ার পূর্বেই ষ্টাম্পের মাধ্যমে দখলীয় জমি বিক্রি করছে। তাদের বেপরোয়া দখল,বিক্রি ও টিলা কর্তন বানিজ্যে হরিলুট হচ্ছে সরকারী হাজার কোটি টাকার সম্পদ, প্রশাসনের এক শ্রেনীর অসৎ কর্মকর্তার কারনে দখল বাণিজ্য বন্ধে নেই কোন কার্যকর পদক্ষেপ।

স্থানীয়দের কাছ থেকে সংবাদ পেয়ে মাঝেমধ্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, পরিবেশ অধিদপ্তর, ভূমি কর্মকর্তা, পুলিশ প্রশাসন অভিযান পরিচালনা করে জরিমানা করলেও থামছেনা দখল বিক্রি বানিজ্য, বন্ধ হচ্ছেনা পাহাড় টিলা কর্তন।

ভূমি ও টিলা খেকো প্রভাবশালী চক্রের লাঠিয়াল বাহিনীর সদস্য তারেকের অত্যাচারে এখানে বসবাসকারী ভূমিহীন পরিবারগুলো অসহায়। মাঝেমধ্যে তাদের বাড়ীঘর দখলে নিতে ভূমিখেকো জাল দলিলের কারিগররা তাদের লাটিয়াল বাহিনী লেলিয়ে দেয় ভূমিহীনদের উপর।

তারই একটি ঘটনা গত ১০ডিসেম্বর সকাল ৯ টায় ঘটে বহর কলোনীর ১৪২ নং দাগে বহর আবাসিক এলাকার বাসিন্দা মৃত শেখ রফিক মিয়ার পুত্র শেখ জমসেদ আলীর সাথে।

ভূমিখেকোরা তাদের লাঠিয়াল বাহিনীর সদস্যদের সাথে করে লাটিসোটা নিয়ে জমসেদের উপর হামলা করে বাথরুমের টেংকির নির্মান কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। এসময় হুমকি দিয়ে বলে আবার টেংকির কাজ শুরু করলে খুন করা হবে। বর্তমানে তাদের ভয়ে তিনি টেংকি নির্মান কাজ বন্ধ রেখেছেন। শুধু তাই না, পরদিন ১১ডিসেম্বর সকাল আনুমানিক ১০টার দিকে আবারও জমসেদের বাড়ীতে গিয়ে মোহরী উসমান গনি, ইয়াবা ব্যবসায়ী তারেক হত্যার হুমকি দেয়। হুমকি দিয়েও কান্ত হয়নি উল্টো হয়রানী করতে জমসেদ আলীকে বিবাদী করে শাহ্পরান থানায় মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করে। এই কাজে অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে পুলিশের সোর্স পরিচয়দানকারী সন্ত্রাসী, ইয়াবা ব্যবসায়ী তারেক।
তাদের হুমকিতে চরম নিরাপত্তাহীন হয়ে স্থানীয় মুরব্বীদের পরামর্শে অবশেষে গত ১৪ ডিসেম্বর শাহ্পরান (র:)থানায় ৭ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৩/৪ জনকে বিবাদী করে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন জমসেদ আলী। বিবাদীরা হলেন (১)উসমান গনী (৪০),পিতা-মৃত উবি উল্লাহ্‌, (২) তৈইব আলী (৫৫),পিতা-মৃত মরম আলী,(৩) সালমা বেগম (৩০), স্বামী-উসমান গনী,(৪) শাহানা বেগম (২৮), স্বামী-আব্দুল করিম,(৫)লুতু বেগম-২(৪০), স্বামী-তৈইব আলী,(৬) শিরিন বেগম-১ (৫০), স্বামী-তৈইব আলী,(৭) তারেক আহমদ(৩৫) পিতা-মখবুল আলী, সর্ব সাং-বহর আ/এ, পো: খাদিমনগর, থানা-শাহ্পরান (র:), জেলা-সিলেট।

গত ১৭ ডিসেম্বর জালদলিলের কারীগর, ভূমিখেকো, ইয়াবা ব্যবসায়ী, মোহরী আইয়ব আলী,মোহরী উসমানগনি, ইয়াবা ব্যবসায়ী সন্ত্রাসী আরাফাত হোসেন তারেক,সাহেব আলী, আমির মিয়া গং এর বিরোদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ভূমিহীনদের পক্ষে বাদী হয়ে এসএমপি পুলিশ কমিশনার, সিলেট জেলা প্রশাসক, সিলেট সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং শাহ্পরান থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। চলবে

সংবাদটি শেয়ার করুন :





© All rights reserved © 2021 Holysylhet