সংবাদ শিরোনাম :
সিলেটে রিকশাচালক ফয়েজ হ.ত্যা : ৪ জন গ্রে.ফ.তা.র

সিলেটে রিকশাচালক ফয়েজ হ.ত্যা : ৪ জন গ্রে.ফ.তা.র

এ এ রানা::
সিলেটে ব্যাটারিচালিত রিকশাচালক ফয়েজ উদ্দিন (২০) হত্যার ঘটনায় ৪জন কে গ্রেফতার করা হয়েছে। পৃথক অভিযান পরিচালনা করে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

বুধবার রাতে সত্যতা নিশ্চিত করেছেন এসএমপির মিডিয়া অফিসার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন : কিশোরগঞ্জ জেলার মিঠামইন থানার শ্যামপুর গ্রামর আবুল কালামের ছেলে আল আমিন (৩২), ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর থানার খাগালিয়া গ্রামের মাহফুজ আহমদের ছেলে তোফাজ্জল মিয়া (৩০), জকিগঞ্জ উপজেলার হাতিডহর গ্রামের মো আব্দুল কাইয়ুমের ছেলে মো. আব্দুল হামিদকে (৩৬) ও সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার কেজাউড়া গ্রামের মৃত আব্দুল খালেকের ছেলে ফজর আলী (৫২)।

নিহত ফয়েজ উদ্দিন সুনামগঞ্জের শা‌ন্তিগঞ্জ উপজেলার শিমুলবাগ গ্রামের মৃত মু‌জিবুর রহমানের ছেলে। তি‌নি সিলেট মহানগরের সোবহানীঘাট এলাকার এক‌টি কলো‌নিতে ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করতেন।

জানা যায়, রিকশাচালক ফয়েজ উদ্দিনের অটোরিকশা চুরি করে তাকে হত্যা পর নদীর পাশে ফেলে দেয়া হয়। গত ১৭ জানুয়ারি সিলেট মহানগরীর মেন্দিবাগ এলাকায় সুরমা নদীর পাড় থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

পরে এর রহস্য উদঘাটনে এবং হত্যা মামলার আসামি গ্রেফতার অভিযানে নামে কোতোয়ালী মডেল থানার একটি চৌকস টিম। তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় শাহজালাল উপশহর ও তেররতন এলাকা থেকে আল আমিন ও তোফাজ্জল মিয়া গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় পরে জকিগঞ্জ উপজেলার কসকনপুর এলাকা থেকে আব্দুল হামিদ (৩৬) কে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করে পুলিশ।

পরে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে পুলিশ হেফাজতে (রিমান্ড) জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে মোঃ ফজর আলী (৫২) কে গ্রেফতার করা হয়। তার দেয়া তথ্যমতে ব্যাটারী চালিত রিক্সাটি আসামী ফজর আলীর বাসা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। এছাড়াও হত্যা কান্ডে ব্যবহৃত চাকুও সুরমা নদী থেকে উদ্ধার করা হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন :





© All rights reserved © 2021 Holysylhet