সংবাদ শিরোনাম :
চা কন্যার অজানা তথ্য নিয়ে আল ইকরাম নয়নের ভিডিও কন্টেন্ট সবজি ক্ষেতের জ্বালে আটকে পড়া দাঁড়াশ সাপ উদ্ধার দক্ষিণ সুরমা থেকে ডিবি পুলিশের অভিযানে ০৩ কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ি গ্রেফতার দক্ষিণ সুরমা থেকে ডিবি পুলিশের অভিযানে ০৩ কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ি গ্রেফতার ডিবির অভিযানে খালিঘাট বস্তাপট্টি শরিফ ও জামালের  জুয়ার আস্তানা থেকে  খেলার সামগ্রী সহ ৩ জুয়ারী গ্রেফতার! ঈদ ও নববর্ষের টানা ছুটিতে চায়ের রাজ্যে ঢল নেমেছে পর্যটকের অবশেষে দক্ষিণ সুরমার শীর্ষ জুয়ারী কাশেমসহ পুলিশের হাতে আটক-৬, এখনো বহাল নজরুল-জামাল-অন্তরের জুয়ার প্রতারণা, সিলেটে মোটরসাইকেলে বেড়াতে বেরিয়ে ৩ বন্ধুই না ফেরার দেশে জাফলংয়ে নারী পর্যটকদের যৌন হয়রানি: এক তরুণের দুই বছরের কারাদণ্ড হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জে গরুর ঘাস খাওয়া নিয়ে সংঘর্ষে আহত ৩৫
ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলাবাসীর উদ্দেশ্যে সতন্ত্র প্রার্থী শামীম আহমদ চৌধুরীর খোলা চিঠি

ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলাবাসীর উদ্দেশ্যে সতন্ত্র প্রার্থী শামীম আহমদ চৌধুরীর খোলা চিঠি

ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলাবাসীর উদ্দেশ্যে
সতন্ত্র প্রার্থী শামীম আহমদ চৌধুরীর খোলা চিঠি

প্রিয় ছাতক-দোয়ারাবাসী শুভেচ্ছা নিবেন,
আপনারা জানেন যে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলা উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে যাচ্ছে। ঠিক তখনই আমার প্রিয় ছাতক-দোয়ারাবাজার এলাকা সারাদেশের মধ্যে দূর্গত উপজেলা হিসেবে চিহ্নিত। যখন খবরের কাগজে দেখি পর পর কয়েক বছর থেকে আমার প্রাণপ্রিয় ছাতক-দোয়ারা এলাকাটি দূর্গত উপজেলা বলা হচ্ছে। উন্নয়ন বঞ্চিত হিসেবে আখ্যায়িত হচ্ছে। আমি আওয়ামীলীগ এর একজন নিবেদিতপ্রাণ কর্মী হিসেবে, আপনাদের ভাই হিসেবে, ছেলে হিসেবে এই ছাতকের প্রতিষ্ঠাতা উপজেলা চেয়ারম্যান মরহুম সুজন মিয়া চৌধুরীর সন্তান হিসেবে আমার ভীষণ দুঃখ হয়। কষ্ট লাগে। তখন ব্যাথা অনুভব করি।

সারাদেশের প্রতিটা অঞ্চলে ব্যাপক উন্নয়ন হচ্ছে। অনেক মেগা মেগা প্রজেক্ট বাস্তবায়ন হচ্ছে। পদ্মা সেতু হয়েছে। হাওরের মাঝখানে হচ্ছে উড়াল সেতু। পানির নিচে বঙ্গবন্ধু টানেল হয়েচ্ছে। বিভিন্ন একাকায় শিল্প-কারখানা হচ্ছে। বড় বড় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হচ্ছে। ট্যাকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ হচ্ছে। কর্মসংস্থান তৈরি হচ্ছে। মেডিক্যাল কলেজ হচ্ছে। গ্রাম হচ্ছে শহর। কিন্তু দুঃখের বিষয় হলেও সত্য যে, আমার প্রিয় জন্মভূমি ছাতক-দোয়ারাবাজার এলাকা রয়েছে এখনো উন্নয়ন বঞ্চিত । আঞ্চলিক ও গ্রামীন রাস্তা গুলোর বেহাল অবস্থা। অনেক জনগুরুত্বপূর্ণ এলাকায় নেই ব্রীজ, কালভার্ট। সম্ভাবনাময় ছাতক দোয়ারাবাজারে তৈরি হচ্ছেনা কোন নতুন কোন শিল্প-কারখানা। নেই পর্যাপ্ত কর্মসংস্থান। চতুর্দিকে শুধু নেই নেই মিছিল।

তাই অনুন্নত ছাতক দোয়ারাবাজার এলাকার উন্নত রাস্তা-ঘাট, চিকিৎসা সেবার মানউন্নয়ন, কর্মসংস্থান ও অসহায় গরিব পরিবারের মানুষের পরিপূর্ণ বাসস্থান তৈরি সহ সার্বিক উন্নয়নের লক্ষ্য আপনাদের মতো আমিও ছাতক-দোয়ারা তথা (সুনামগঞ্জ-৫) আসনের পরিবর্তন চাই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উন্নয়নের সুষম বন্টনের মাধ্যমে শান্তিপূর্ণ ছাতক দোয়ারাবাজার উপজেলা দেখতে চাই।

আমার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী টানা তিন তিন বারের সরকারীদলের এমপি। তিনি এর আগেও একবার এমিপ ছিলেন। প্রতিবারই আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায়। জননেত্রী শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী। যার সুবাদে সারা দেশে উন্নয়নের ছোঁয়া লাগছে, তৈরি হচ্ছে অবারিত কর্মসংস্থান। একসময়ের মঙ্গা অধ্যুষিত জেলাগুলোও সমৃদ্ধ। কর্মমুখর। খরা-বন্যা উধাও। সেই তুলনায় আমারা দুর্নীতির অতল তলে নিমজ্জিত হয়ে আছি। শিল্পনগরী খ্যাত ছাতক আজ অপউন্নয়নের বাগাড়। দোয়ারাবাজার রয়েছে জনবিচ্ছিন্ন হয়ে। কোনো একটি সংযোগ সড়ক ভালো নেই। সব-কটি রাস্তা চলাচল অনুপোযোগী। কেন? এর জন্য কে দায়ী? এই ২০ বছরে ছাতক-দোয়ারার এতো অবনতি কেন? এতো মামলা-হামলা, খুন, ধর্ষণ কার ইশারায়?। আপনারা সকলজনগন তা খতিয়ে দেখবেন।

যেখানে কালভার্টের প্রয়োজন সেখানে কালভার্ট নেই। যেখানে ব্রিজ দরকার সেখানে ব্রিজ না দিয়ে মাটি ভরাট। যেখানে আদৌও কোনো বেড়িবাঁধ দরকার নাই সেখানেও অপরিকল্পিতভাবে দেওয়া হচ্ছে বেড়িবাঁধ। এ যেন টাকা কামানোর অসুস্থ মচ্ছব! ফলে প্রতিবছর অকাল বন্যায় ভেসে যায় আমার প্রিয় ছাতক-দোয়ারা। ক্ষতি হয় কোটি কোটি টাকার সম্পদ। ঘরবাড়ি থেকে নিয়ে ফসল। এ যেন কেউ দেখার নেই! অভিভাবকশূণ্য আমার ছাতক-দোয়ারা। এ থেকে মুক্তি পেতে মুক্তি পাগল ছাতক-দোয়ারার মানুষ বহুবছর থেকে বারবার আবদার করে আসছেন আমি যেন নির্বাচনে আসি। দুর্গত ছাতক-দোয়ারাকে স্বনির্ভর করার চেষ্টা করি।

আপনারা সকল মুরুব্বিদের আদেশ, আমার নেতা কর্মীদের আবদার, তরুণদের অনুরোধে বিগত ১৮সালের নির্বাচনে আমি আওয়ামিলীগের মনোনয়ন চাই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা আমাকে মনোনয়ন না দিলে নেতাকর্মীদের আশা-আকাঙ্ক্ষার দোলাচালে যখন ভাসছিলাম। সবাইকে নিয়ে পরামর্শ করছিলাম। ঠিক তখনই জনাব এম পি সাহেব, আমার অগ্রজ ছাতক পৌরসভার টানা চার চারবারের মেয়র জননেতা আবুল কালাম চৌধুরীকে নিয়ে আমাকে বুকে জড়িয়ে ধরে বলেছিলেন, শামিম আমার ছোট ভাই। প্রাণোচ্ছল তরুণ। এবারের নির্বাচন আমার শেষ নির্বাচন। আগামী টার্মে বেঁচে থাকলে আমি শামিমের হয়ে নির্বাচন করবো। শেষ বয়সটাতে লজ্জা দিও না, ভাই। তখন আমি তাঁর কথায় বিশ্বাস করে দিনরাত একসাথে থেকে তাঁর পক্ষে হাটে-মাঠে, গ্রাম-গঞ্জে, নগরে-বন্দরে চষে বেড়াই। সবাইকে আশ্বস্ত আশ্বস্ত করি এই নির্বাচন উনার শেষ নির্বাচন। অতীতের ভুল হবে না। কাঙ্খীত উন্নয়ন হবে। দূর্ভাগ্যবশত উনি নির্বাচনী বৈতরণী পার হয়েই তার পুরনো রূপে ফিরে যান। সকল প্রতিশ্রুতি বেমালুম ভুলে যান। সেই পুরনো খলিফাদের নিয়ে কালো টাকা কামানোর ধান্ধায় কোমর বেঁধে ঝাপিয়ে পরেন। ফলশ্রুতিতে যা হবার তা-ই হলো। আমরা হলাম উন্নয়ন বঞ্চিত। তিনি ও তার খলিফারা হলেন টাকার কুমির!

এবারও আমি আপনাদের সকলের দোয়া ও পরামর্শ নিয়ে মনোনয়ন ফরম কিনেছিলাম। শতভাগ নিশ্চিত ছিলাম প্রতীক পাবো। কিন্তু অদৃশ্য এক কারণে এম পি সাহেবের সম্পূর্ণ বলয় প্রতীক বঞ্চিত হওয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার হাতে পায়ে ধরে উনি প্রতীক নিয়ে আসেন।

আল্লাহ সহায়, বঙ্গবন্ধু তনয়া জননেত্রী শেখ হাসিনা এবারের নির্বাচনকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ করতে আমাকে নির্দেশ দিয়েছেন শামিম তুমি সতন্ত্র প্রার্থী হও। নির্বাচন করো। জনগণের ভালোবাসা নিয়ে সংসদে আসো, আমার দোয়া আছে। তাই ঢাকা থেকে এলাকায় এসে প্রতমেই আপনাদের পরামর্শ নিয়ে মনোনয়ন জমা দেই। মহান আল্লাহর অশেষ রহমতে, আপনাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে পুরো ছাতক-দোয়ারা এখন পরিবর্তনের হাওয়ায় দুলছে। সবাই আমাকে তার সন্তানের মতো, ভাইয়ের মতো কেউ আবার বন্ধুর মতো বুকে টেনে নিচ্ছেন। এজন্য আমি ও আমার পরিবার আপনাদের কাছে চির কৃতজ্ঞ। আমি বিশ্বাস করি আমার প্রতিপক্ষ কেউ নেই। যারা আছেন আমরা একই ফুলের পাপড়ি। নির্বাচনী বৈতরণী পার হতে হয়তো আমার বা আমার পরিবার নিয়ে অসত্য বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন । এটাকে আমি বড় করে দেখছি না। মহান আল্লাহ তায়ালা যদি আগামী ৭জানুয়ারীর নির্আাচনে আমাকে আপনাদের সকলের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আমার ঈগল প্রতিকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করেন আমি সবকিছু ভুলে গিয়ে, দল-মতের উর্ধ্বে থেকে সবাইকে সাথে নিয়ে অবহেলিত ছাতক-দোয়ারাকে স্মার্ট ছাতক-দোয়ারাবাজার উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলবো ইনশাআল্লাহ।

আমি বা আমার পরিবার কোনোদিন নির্বাচনী প্রতিপক্ষকে শত্রু মনে করি না আর আগামীতেও করবো না। গণতন্ত্রের সৌন্দর্য হিসেবেই দেখবো । সুতরাং কারো প্ররোচনায় আপনারা ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলাবাসী আমাকে কখনো ভুল বুঝবেন না। আগামী ৭ তারিখ পরে বুঝবেন আমার বুক কতোটা প্রশস্ত। পক্ষ-বিপক্ষ না দেখে ছাতক-দোয়ারার উন্নয়নের স্বার্থে সবাইকে আমার বুকে স্থান করে দিব ইনশাআল্লাহ। আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামীন যদি আমাদের সহায় হন তাহলে ছাতক-দোয়ারার মানুষ পরিবারতন্ত্র থেকে মুক্ত হবেন ইনশাআল্লাহ। সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে যাবে আমার প্রিয় জন্মভূমি ছাতক-দোয়ারাবাজার এলাকা। পরি শেষে ছাতক দোয়ারাবাজার উপজেলার সর্বস্তরের জনসাধারনের সু সাস্থ্য, দীর্ঘায়ু ও মঙ্গলকামনা করছি, আমিন।##

সংবাদটি শেয়ার করুন :





© All rights reserved © 2021 Holysylhet