সংবাদ শিরোনাম :
শ্রীমঙ্গলে চা বাগানে গভীর নলকুপ স্থাপনে ৩০শ্রমিক পরিবারের সুপেয় পানির সমস্যা সমাধান ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে সিলেটে পবিত্র শবে বরাত পালিত আইজিপি পদক পাচ্ছেন রাজনগর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আব্দুছ ছালেক শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্টিত সিলেটে নান্টু শাহিনের ভয়াল মাদকের থাবায় ধ্বংসের পথে যুবসমাজ মু.মাসুদ রানাসহ সিলেটের ১৬ জন পাচ্ছেন বিপিএম-পিপিএম পদক শ্রীমঙ্গলে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হবে ৪ দিনব্যাপী শুভ দ্বারোদঘাটন ও শ্রীশ্রীবিগ্রহ প্রতিষ্ঠা মহোৎসব কুলাউড়ায় ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দেশীও অস্ত্রসহ ৩ ডাকাত আটক কুলাউড়ায় বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতির বিরুদ্ধে সরকারি বরাদ্দ আত্মসাতের অভিযোগ মৌলভীবাজার আইনজীবী সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন: সভাপতি কামাল উদ্দিন চৌধুরী-সম্পাদক মো: জয়নুল হক
খাদিমে জাল দলিলে সরকারী টিলা,পুকুর দখল করে প্লট বিক্রিতে বেপরোয়া ভূমিখেকো আইব আলী-উসমান আলী মোহরী

খাদিমে জাল দলিলে সরকারী টিলা,পুকুর দখল করে প্লট বিক্রিতে বেপরোয়া ভূমিখেকো আইব আলী-উসমান আলী মোহরী

এ এ রানা::
সিলেটের খাদিম নগরে বহর মৌজার জে এল নং ৭০ খতিয়ান নং ১,২ দাগ ১৪২, জমির পরিমাণ ৩৮ একর ৩৪ শতক সরকারী খাস পাহাড়, বন, টিলা, পুকুর রয়েছে। তার মধ্যে মাত্র ৮ একর ৪ শতক জমি বন্দোবস্ত লিজ দেওয়া হয় ভারত থেকে বিতাড়িত হয়ে আশা মোহাজীদেরকে। অবশিষ্ট ৩০একর ৩০ শতক সরকারী খাস জমি জবর দখল করে নিচ্ছে ও দখল পজিশনের জাল দলিল তৈরি করে আদালতে মামলা দিয়ে, মামলা নিষ্পত্তি হওয়ার পূর্বেই ষ্টাম্পের মাধ্যমে দখলীয় জমি বিক্রি করছে স্থানীয় ভূমি ও টিলাখেকো চক্র। তাদের বেপরোয়া দখল,বিক্রি ও টিলা কর্তন বানিজ্যে রীতিমত অসহায় প্রশাসন। স্থানীয়দের কাছ থেকে সংবাদ পেয়ে মাঝেমধ্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, পরিবেশ অধিদপ্তর, ভূমি কর্মকর্তা, পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে জরিমানা করলেও থামছেনা দখল বিক্রি, বন্ধ হচ্ছেনা পাহাড় টিলা কর্তন। কিছুদিন যাবৎ পুকুর ভরাট করে নিজেদের পায়দা হাসিলের উদ্দেশ্যে সরকারী খাস জমি
দখল করে ষ্টাম্পের মাধ্যমে বিক্রি হচ্ছে। কোন অনুমোদন ছাড়াই পাহাড় টিলা কেটে, পুকুর ভরাট করে প্লট তৈরি করে ফাঁকা ওয়ালের টিনের ঘর বাড়ী তৈরি করা হচ্ছে।

এই বেপরোয়া অপরাধ বানিজ্যে জড়িত রয়েছে আইব আলী, উচমান আলী মোহরী গং। এই চক্রটি
নিজেদের পায়দা হাসিলের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন ধরনের মামলা দায়ের করে মামলা চলাকালীন সময়ে সরকারী খাস জমির উপর আদাপাকা টিনের ঘর বাড়ী তৈরি করছে।

এব্যপারে মুঠোফোনে মোহরী উসমান আলীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন আমি ১৩ একর নিয়ে মামলা চালাচ্ছি, ইতিমধ্যে ২টি মামলার রায় পাইছি, আমি কোন জমি বিক্রি করছিনা তবে নিজে এই কয়েকদিনে ৩টি ঘর বানিয়েছি।

এব্যপারে মুঠোফোনে সিলেট সদর উপজেলা নিবাহী কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি অভিযান দিবেন বলে জানালেও অভিযানতো দূরের কথা কোন লোক পাঠানো হয়নি। চলবে

সংবাদটি শেয়ার করুন :





© All rights reserved © 2021 Holysylhet