সংবাদ শিরোনাম :
সিলেটের বিভিন্ন সীমান্তের চোরাকারবারিদের দৌরাত্ম্যের ২য় পর্বে জৈন্তাপুর উপজেলা বড়লেখায় পুলিশের অভিযানে ২০০ পিস ইয়াবাসহ আটক ১ সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সচেতন নাগরিক ফোরামের মানববন্ধন পরিবেশ অধিদপ্তরের অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে সতর্ক থাকার আহবান চা কন্যার অজানা তথ্য নিয়ে আল ইকরাম নয়নের ভিডিও কন্টেন্ট সবজি ক্ষেতের জ্বালে আটকে পড়া দাঁড়াশ সাপ উদ্ধার দক্ষিণ সুরমা থেকে ডিবি পুলিশের অভিযানে ০৩ কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ি গ্রেফতার দক্ষিণ সুরমা থেকে ডিবি পুলিশের অভিযানে ০৩ কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ি গ্রেফতার ডিবির অভিযানে খালিঘাট বস্তাপট্টি শরিফ ও জামালের  জুয়ার আস্তানা থেকে  খেলার সামগ্রী সহ ৩ জুয়ারী গ্রেফতার! ঈদ ও নববর্ষের টানা ছুটিতে চায়ের রাজ্যে ঢল নেমেছে পর্যটকের অবশেষে দক্ষিণ সুরমার শীর্ষ জুয়ারী কাশেমসহ পুলিশের হাতে আটক-৬, এখনো বহাল নজরুল-জামাল-অন্তরের জুয়ার প্রতারণা,
সাইফুল-হোসেনের রমরমা জুয়ার প্রতারণা, পুলিশের ভূমিকা রহস্যজনক?

সাইফুল-হোসেনের রমরমা জুয়ার প্রতারণা, পুলিশের ভূমিকা রহস্যজনক?

 

এ এ রানা::
কিছুদিন বন্ধ থাকার পর আবারও শুরু হয়েছে সোবহানীঘাট কাচাঁবাজার ও মাছিমপুর ল কলেজ সংলগ্ন জেলা পরিষদের জায়গায় আবুল মাল ক্রীড়া কমপ্লেক্সের ২নং গেইটের সম্মূখে সাইফুল-হোসেনের রমরমা জুয়ার প্রতারণা। তাদের এই অবৈধ জুয়ার প্রতারণায় নিন্ম আয়ের সাধারন মানুষ সবকিছু হারিয়ে খালি হাতে বাসায় ফিরছে। ফলে একদিকে বাড়ছে পারিবারিক বিরোধ, অন্যদিকে প্রতারিতরা জড়িয়ে পড়ছে বিভিন্ন অপরাধ মূলক কর্মকান্ডে।

মহানগরীর উত্তর সুরমার জুয়ারি সিন্ডিকেট চক্রের দাপট ও প্রতারণায় দীর্ঘদিন থেকে প্রকাশ্যে দিবালোকে সোবহানীঘাট পুলিশ ফাঁড়ির মাত্র ১০০ গজ দক্ষিণ পশ্চিমে ট্রেডসেন্টার কাচাঁবাজারের পিছনে এবং ২৫০ গজ দক্ষিণে ল কলেজের উত্তরে
জেলা পরিষদের জায়গায় আবুল মাল ক্রীড়া কমপ্লেক্সের ২নং গেইটের সম্মূখে সাইফুল-হোসেন
প্রশাসনের নাকের ডগায় ১০ টাকায় ৮/৯ শত টাকার লোভ দেখিয়ে তীর শীলং ঝান্ডু মন্ডল দেদারছে চালাচ্ছে জুয়ার রমরমা প্রতারণা। আর জুয়ারীদের প্রতারণার ফাঁদে পরে সবকিছু হারিয়ে নিশ্ব: হয়ে খালি হাতে বাড়ী ফিরছে প্রতারিতরা। ফলে জুয়ারীরা প্রতারণার মাধ্যমে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা।

বিগত কয়েক বছর যাবৎ একটি অপরাধী চক্র সিন্ডিকেট করে মহানগরীর উত্তর ও দক্ষিণ সুরমার বিভিন্ন মার্কেট, ব্যস্ততম রাস্তা, দোকানপাট, অলি-গলিতে ও সরকারি ভূমিতে অস্থায়ী ঘর বানিয়ে তাদের জুয়া ও মাদকের রমরমা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।

উল্লেখ্য গত ১৩ জুলাই বৃহস্পতিবার
“সোবহানীঘাট কাচাঁবাজারের পিছনে সাইফুল-হোসেন গং এর রমরমা জুয়ার বাণিজ্যে, নিরব পুলিশ” শিরোনামসহ বিভিন্ন শিরোনামে ধারাবাহিক সংবাদ সাপ্তাহিক হলি সিলেট প্রকাশিত হয়। সংবাদটি সিলেট মহানগর পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের দৃষ্টিগোচর হলে তারা মাঠপর্যায়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন অভিযান পরিচালনা করতে। কিন্তু অদৃশ্য শক্তির কারণে সোবহানীঘাট ফাড়িঁর আইসি অভিযান পরিচালনা না করে নিরব ভূমিকা পালন করছেন। এতে জুয়ারীরা আরো বেপরোয়া হয়ে তাদের জুয়ার প্রতারণা দেদারছে চালিয়ে যাচ্ছে। পরে অভিযান পরিচালনা করলে জুয়ার আস্তানা বন্ধ হয়েযায়।বর্তমানে জুয়ার প্রতারণা আাবারও শুরু হয়েছে।

এ ব্যপারে সোবহানীঘাট ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত ইনচার্জ কাজী  রিপন এর সাথে গত ২৫,২৬,২৭ সেপ্টেম্বর যোগাযোগ করা হলে তিনি এই প্রতিবেদককে বলেন দেখছি। কিন্ত দেখা আর শেষ হয়না। ২৮ সেপ্টেম্বর আবার যোগাযোগ করা হলে তিনি এ প্রতিবেদক কে  এ এস আই নুরুল ইসলাম এর মোবাইল নাম্বার দিয়ে  তাঁর সাথে যোগাযোগ করতে বলেন পরে উনার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি সাথে সাথে অভিযান পরিচালনা করেন কিন্তু কোনো জুয়ারীকে আটক করতে পারেন নি ।

সংবাদটি শেয়ার করুন :





© All rights reserved © 2021 Holysylhet