সংবাদ শিরোনাম :
শ্রীমঙ্গলে দুই ভোট কেন্দ্রের চারজন সহকারী প্রিসাইডিং অফিসারকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি হযরত শাহজালাল (রহঃ) এর মাজার শরীফের ৭০৫তম পবিত্র ওরস এর আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি পরিদর্শন করেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার শেখ হাসিনার ৪৩তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে ইউকে ওয়েলস আওয়ামী লীগের সভা অনুষ্ঠিত শ্রীমঙ্গলে র‌্যাবের অভিযানে ইয়াবা, মদ ও পিস্তলসহ যুক্তরাজ্য নাগরিক আটক কুলাউড়ায় ভোক্তার অভিযানে ৩ প্রতিষ্টানকে জরিমানা যুক্তরাজ্যের বাকিংহাম প্যালেসে রাজপরিবারের পার্টিতে আমন্ত্রন পেলেন শ্রীমঙ্গলের অলিউল কবি কাজী নজরুলের জন্মবার্ষিকীতে বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরামের আলোচনা সভা কবি নজরুলের ১২৫ তম জন্মদিন উপলক্ষে  আলোচনা সভা আবৃত্তি ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা সিসিকের হোল্ডিং ট্যাক্স এসেসমেন্ট বাতিল, পুনরায় রি-এসেসমেন্টের সিদ্ধান্ত বিয়ানীবাজার জনকল্যাণ সমিতির ভবন নির্মাণ বাস্তবায়ন কমিটি গঠন
জগলো-জয়নাল চক্রের প্রতারণায় সুরমা নদী খননের কোটি টাকার বালি বিক্রি,প্রশাসন নির্বিকার

জগলো-জয়নাল চক্রের প্রতারণায় সুরমা নদী খননের কোটি টাকার বালি বিক্রি,প্রশাসন নির্বিকার

 

এ এ রানা::
সিলেটের দক্ষিণ কুশিঘাটে কিশোর খেলার মাটে পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক সুরমা নদীর খননের কাজে নিয়োজিত ডেজিং এর মাধ্যমে জমানো বালি অবৈধভাবে প্রতারণা করে দেদারছে বিক্রি করছে দায়িত্বপ্রাপ্ত জগলো-জয়নাল চক্র।

খোজঁ নিয়ে জানাযায় নদী খননের বালি বিভিন্ন স্থানে স্তোপ আকারে পানি উন্নয়ন বোর্ড জমা করছে। যাহা খনন কাজ শেষে জমাকৃত সমস্ত বালি জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে নিলামের মাধ্যমে বিক্রি করার কথা। কিন্ত বিভিন্ন স্থানে জমাকৃত বালি রক্ষণাবেক্ষণের জন্য যাদেরকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে তারাই বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন কাষ্টমারের কাছে জমাকৃত বালি অবৈধ ভাবে বিক্রি করছেন। গত ৮ মাসে ঐ চক্র জেলা প্রশাসকের কাযালয় বা প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই দেড় কোটি টাকার বালি বিক্রি করে ভাগাভাগি করে নিয়েছে।

হলি সিলেটের কাছে রহিম নামের একব্যক্তি জানান তিনি তাহার একটি প্লট ভরাট করতে দক্ষিণ কুশিঘাট কিশোর মাট থেকে ১১টাকা ফুট বালি ক্রয় করছেন। যাদের কাছ থেকে বালি ক্রয় করছেন তাদের সরকারী বালি বিক্রির অনুমোদন আছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন সেটা জানিনা।

দায়িত্ব প্রাপ্ত যারা বালি বিক্রি করছেন তাদের বালি বিক্রির অনুমোদন আছে কি না জানতে মুঠোফোনে জয়নাল এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন আমি কিছু জানিনা জগলো ভাই জানে। এর পর গোলজার আহমদ জগলো এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন আমি জানিনা জয়নাল জানে। পরে বলেন পানি উন্নয়ন বোর্ডে সাথে যোগাযোগ করেন। এরই মধ্যে আরেক ব্যাক্তিকে মোবাইল দিয়ে বলেন কথা বলতে, ঐ ব্যাক্তি হলি সিলেটকে বলেন জেলা প্রশাসকের সাথে যোগাযোগ করতে।

এ ব্যপারে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে,তিনি হলি সিলেটের এই প্রতিবেদককে বলেন গোলাপগঞ্জ থেকে লামাকাজি পর্যন্ত সুরমা নদী থেকে বালি উত্তোলন করতে ২০২৩ইং সালে কাউকে লিজ দেওয়া হয়নি। তবে পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক নদী খননের বালি বিভিন্ন স্থানে স্তুপকৃত করে রাখা হচ্ছে। খনন কাজ শেষ হলে আমরা এক সাথে বালি নিলাম দিবো।

সংবাদটি শেয়ার করুন :





© All rights reserved © 2021 Holysylhet