সংবাদ শিরোনাম :
সিলেটের বিভিন্ন সীমান্তের চোরাকারবারিদের দৌরাত্ম্যের ২য় পর্বে জৈন্তাপুর উপজেলা বড়লেখায় পুলিশের অভিযানে ২০০ পিস ইয়াবাসহ আটক ১ সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সচেতন নাগরিক ফোরামের মানববন্ধন পরিবেশ অধিদপ্তরের অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে সতর্ক থাকার আহবান চা কন্যার অজানা তথ্য নিয়ে আল ইকরাম নয়নের ভিডিও কন্টেন্ট সবজি ক্ষেতের জ্বালে আটকে পড়া দাঁড়াশ সাপ উদ্ধার দক্ষিণ সুরমা থেকে ডিবি পুলিশের অভিযানে ০৩ কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ি গ্রেফতার দক্ষিণ সুরমা থেকে ডিবি পুলিশের অভিযানে ০৩ কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ি গ্রেফতার ডিবির অভিযানে খালিঘাট বস্তাপট্টি শরিফ ও জামালের  জুয়ার আস্তানা থেকে  খেলার সামগ্রী সহ ৩ জুয়ারী গ্রেফতার! ঈদ ও নববর্ষের টানা ছুটিতে চায়ের রাজ্যে ঢল নেমেছে পর্যটকের অবশেষে দক্ষিণ সুরমার শীর্ষ জুয়ারী কাশেমসহ পুলিশের হাতে আটক-৬, এখনো বহাল নজরুল-জামাল-অন্তরের জুয়ার প্রতারণা,
শ্রীমঙ্গলে মৌসুমের প্রথম নিলামে সর্বোচ্চ দরে বিক্রি হয়েছে সাবারী গ্রীন টি

শ্রীমঙ্গলে মৌসুমের প্রথম নিলামে সর্বোচ্চ দরে বিক্রি হয়েছে সাবারী গ্রীন টি

প্রতিবেদন,এম.মুসলিম চৌধুরী:
মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে মৌসুমের প্রথম চা নিলামে প্রায় ৩০ হাজার কেজি চা বিক্রি হয়েছে। আর সর্বোচ্চ দরে বিক্রি হয়েছে সাবেরী টি প্লান্টেশনের সাবেরী গ্রীন টি। যার প্রতি কেজি বিক্রি হয়েছে ১৯৫০টাকা দরে বিক্রি হয়।
বুধবার মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলস্থ দেশের দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক চা নিলাম কেন্দ্রের অস্থায়ী নিলাম কেন্দ্র জেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে মৌসুমের প্রথম নিলাম অনুষ্টিত হয়। নিলামে ৩৮জন বায়ার অংশ নেন। ৫টি বোকার্স হাউজের মাধ্যমে মোট ৫৬ হাজার কেজি চা নিলামে তোলা হয়। এর মধ্যে নিলামের মাধ্যমে ৩০ হাজার কেজি চা বিক্রি হয়েছে। এ নিলামে প্রতি কেজি চা গড়ে ২৫০ টাকা দরে বিক্রি হয়। মৌসুমের প্রথম নিলামে সর্বোচ্চ দরে বিক্রি হয় সাবেরী টি প্লান্টেশনের এর গ্রীণ টি। যার নিলাম দর ছিল প্রতি কেজি ১৯৫০টাকা। শ্রীমঙ্গল চা ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মো. চেরাগ আলী জানান, দেশের দ্বিতীয় চা নিলাম কেন্দ্র শ্রীমঙ্গলে এবারের চা মৌসুমের প্রথম নিলাম প্রায় ৩০ হাজার কেজি চা বিক্রি হয়েছে। এ নিলামে কিছু চা অবিক্রিত রয়ে গেছে। আগামী নিলামগুলোতে আরো বেশি চা বিক্রির প্রত্যাশা করছি। সোনার বাংলা ব্রোকার্স লিমিটেড এর চেয়ারম্যান শহীদ আহমদ জানান, চলতি বছরের প্রথম চা নিলামে সর্বমোট মোট ৫৬ হাজার কেজি চা উত্তোলন করা হয়েছিল। এর মধ্যে প্রায় ৫০ শতাংশ চা বিক্রি হয়েছে। যে ৫৬ হাজার কেজি চা নিলামে উত্তোলন করা হয় তার মধ্যে শ্রীমঙ্গল ব্রোকার্স লিমিটেডের মাধ্যমে নিলামে উত্তোলন হয় ৩৮ হাজার ৩৫৬ কেজি। বাকি সাড়ে ১৭ হাজার কেজি চা উত্তোলন করেন সোনার বাংলা ব্রোকার্স লিমিটেড, জালালাবাদ টি ব্রোকার্স লিমিটেড, রূপসী বাংলা টি ব্রোকার্স লিমিটেড ও জি. এস ব্রোকার্স লিমিটেড।

সংবাদটি শেয়ার করুন :





© All rights reserved © 2021 Holysylhet