সংবাদ শিরোনাম :
১৭ পদাতিক ডিভিশন সিলেট অঞ্চলের তত্ত্বাবধানে আন্তর্জাতিক জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী দিবস-২০২৪ পালন করা হয়েছে । শ্রীমঙ্গলে শান্তিপূর্ন ভোট গ্রহণ শেষে চলছে গননা সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার  কর্তৃক সহকারী পুলিশ কমিশনার কোতোয়ালী মডেল থানা কার্যালয় পরিদর্শন শ্রীমঙ্গলে দুই ভোট কেন্দ্রের চারজন সহকারী প্রিসাইডিং অফিসারকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি হযরত শাহজালাল (রহঃ) এর মাজার শরীফের ৭০৫তম পবিত্র ওরস এর আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি পরিদর্শন করেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার শেখ হাসিনার ৪৩তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে ইউকে ওয়েলস আওয়ামী লীগের সভা অনুষ্ঠিত শ্রীমঙ্গলে র‌্যাবের অভিযানে ইয়াবা, মদ ও পিস্তলসহ যুক্তরাজ্য নাগরিক আটক কুলাউড়ায় ভোক্তার অভিযানে ৩ প্রতিষ্টানকে জরিমানা যুক্তরাজ্যের বাকিংহাম প্যালেসে রাজপরিবারের পার্টিতে আমন্ত্রন পেলেন শ্রীমঙ্গলের অলিউল কবি কাজী নজরুলের জন্মবার্ষিকীতে বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরামের আলোচনা সভা
ব্রি ২৮ ধান এবার আমাদের সাথে বেইমানী করেছে, প্রতি ছড়ায় প্রায় ৯০ভাগ ধান ছিটা

ব্রি ২৮ ধান এবার আমাদের সাথে বেইমানী করেছে, প্রতি ছড়ায় প্রায় ৯০ভাগ ধান ছিটা

প্রতিবেদন,এম.মুসলিম চৌধুরী:

 

মৌলভীবাজারে বুরো ধান ব্রি ২৮ ব্লাষ্ট রোগে আক্রান্ত হয়ে নষ্ট হয়েছে শত শত কৃষকের বুরো ফসল। এতে সামনে নিজেদের খোরাকি নিয়ে ‍দুশ্চিন্তায় ক্ষতিগস্থ কৃষকরা। এ অবস্থায় নিরুপায় হয়ে সরকারের সহায়তা চেয়ে মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন করেছেন শ্রীমঙ্গল নোয়াগাও, রাজাপুর, ইউছুপপুর, উত্তর ভাড়াউা, লামুয়াসহ কয়েক গ্রামের শতাধিক কৃষক।

শনিবার বিকেল ৩টায় শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করে কৃষকরা বলেন, হাইল হাওরে বুরো ফসলই এই এলাকার অধিকাংশ মানুষের জীবিকা নির্বাহনের প্রধান মাধ্যম। কেউ কেউ আউশ ও আমন করলেও তা পরিমানে খুবই কম। এই ধানই তাদের আগামী বছরের পরিবার পরিজন নিয়ে চলাচলের একমাত্র অবলম্বন। কিন্তু বিধিবাম ব্লাষ্ট রোগে আক্রান্ত হয়ে পুরো ক্ষেতের ধানই এখন ছিটা হয়েগেছে। নষ্ট হওয়া ধান কেউ গরুর জন্য কেটে নিচ্ছেন, কেউ জমিতেই ফেলে রেখেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, নোয়াগাঁও গ্রামের কৃষক ইউছুপ মিয়া মো: তাজুল ইসলাম, মো: দুলাল মিয়া ও মো: আছাদ মিয়াসহ শতাধিক কৃষক।

কৃষকরা বলেন, আগামী, আউশ, আমন ও বুরো মৌসুমে বীজ, সার ও অনান্য ক্ষেত্রে সরকার সহায়তা না করলে তাদের পক্ষে আর চাষ করা সম্ভব হবে না। একই সাথে ক্ষুদ্র, প্রান্থিক ও বর্গা চাষিদের আর্থিক সহায়তা না করলে তারা পরিবার পরিজন নিয়ে না খেকে থাকতে হবে। পরে তারা শ্রীমঙ্গগল সাগর দিঘি সড়কে মানববন্ধন করে তাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সরকারের দৃষ্টি আর্কশন করেন।

এ ব্যাপারে শ্রীমঙ্গল উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো: মহিউদ্দিন জানান, ব্রি ২৮ রোপনে কৃষকদের নিরুৎসাহিত করা হয়েছে এর পরও কৃষকরা শ্রীমঙ্গল উপজেলায় ২৬৫১ হেক্টর জমিতে ব্রি ২৮ ধান রোপন করেন। যার মধ্যে বেশ কিছু অংশ ব্লাস্ট রোগে আক্রন্ত হয়। যখন এটি প্রথম ধরা পড়ে তখন পাতা একটু একটু মরতে শুরু করে। তখনই কৃষকদের ‍দুই রাউন্ড ছত্রাক নাশক স্প্রেসহ অনান্য পরামর্শ দেয়া হয়। যারা প্রপার নিয়ম পালন করিননি তাদের ফসল নষ্ট হয়েছে। তিনি বলেন, ক্ষতিস্থ কৃষকদের তালিকা তৈরী করা হচ্ছে। যা উপরে পাঠানো হবে। সরকার থেকে কোন সিন্ধান্ত বা সহায়তা আসলে কৃষকদের মধ্যে বিতরণ করা হবে।

 

 

সংবাদটি শেয়ার করুন :





© All rights reserved © 2021 Holysylhet