সংবাদ শিরোনাম :
কুলাউড়ায় পানিতে ডুবে ২ শিশুর মৃত্যু শাহপরাণ থানার পুলিশের অভিযানে ট্রাকে থাকা পাথরের নিচ থেকে ২০০ বস্তা চিনি সহ আটক:২ রাজনগরে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ছেলের পর মারা গেলেন বাবাও পবিত্র ঈদ-উল-আযহা-উদযাপন উপলক্ষ্যে এসএমপি পুলিশের সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা নিরাপত্তা এবং ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত শ্রীমঙ্গলে ভূমি সপ্তাহ উপলক্ষে ১৪৭ জন গৃহ ও ভূমি প্রাপ্ত উপকারভোগীদের মাঝে খতিয়ান হস্তান্তর মৌলভীবাজারে মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষুধ সংরক্ষসহ বিভিন্ন অনিয়মে ভোক্তার জরিমানা মৌলভীবাজারে বহুদলীয় প্লাটফর্ম পিস ফ্যাসিলিটেটর গ্রুপের কমিটি গঠন ছাতকে ভারতীয় চিনি বোঝাই ট্রাক সহ আটক ১ ছাতকে ভূমিহীন-গৃহহীন ৬৮টি পরিবার পেয়েছে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর ছাতক পৌরসভায় টিএলসিসি’র বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত
স্যার না ডাকায় সাংবাদিকের উপর ক্ষেপলেন গোলাপগঞ্জের মৎস কর্মকর্তা

স্যার না ডাকায় সাংবাদিকের উপর ক্ষেপলেন গোলাপগঞ্জের মৎস কর্মকর্তা

 

এ এ রানা::
স্যার না ডাকায় সাংবাদিকের উপর ক্ষেপলেন গোলাপগঞ্জের মৎস কর্মকর্তা
উপসহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মিজানুর রহমান

দেশ জুড়ে গত কয়েক দিন ধরে আলোচনার ঝড় উঠেছে সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বিরুদ্ধে । এমন একটি ঘটনা ঘটেছে সিলেটের গোলাপগঞ্জে এক মৎস্য কর্মকর্তাকে ভাই ডাকায় আপত্তি জানিয়েছেন একই কার্যালয়ের উপসহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মিজানুর রহমান।

মঙ্গলবার (২৮ মার্চ) বেলা আড়াইটার দিকে উপজেলা মৎস্য অফিসে গিয়েছিলেন স্থানীয় সাংবাদিক ফাহিম আহমদ। তিনি বলেন, “অফিসে মৎস্য কর্মকর্তাকে না দেখে উপসহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মিজানুর রহমানকে বলি, ভাই (মৎস্য কর্মকর্তা হাসিবুল হাসান) কোথায়? এ কথা বলতেই তিনি রেগে গিয়ে বলেন, ‘ভাই কেন ডাকলেন, একজন বিসিএস ক্যাডারকে কী ভাবে ডাকতে হয় আপনি জানেন না?’ কী বলে ডাকতে হবে জানতে চাইলে উপসহকারী মৎস্য কর্মকর্তা বলেন, ‘ফিশারিজ অফিসার ডাকবেন।’ এ ঘটনার পর সঙ্গে থাকা আরও দুজন সহকর্মী প্রতিবাদ জানান।
ফাহিম আরও বলেন, ‘তাঁরা সাংবাদিকদের সঙ্গে যদি এমন আচরণ করেন তাহলে সাধারণ জনগণের সঙ্গে কী ধরনের আচরণ করছেন তা জানা নেই।’
এ বিষয়ে উপসহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মিজানুর রহমান বলেন, ‘কয়েক জন লোক অফিসে এসে জানতে চাই ছিলেন ভাই কোথায়, আমি তাঁদের বলি ভাই কে? তখন তাঁরা মৎস্য কর্মকর্তার কক্ষ দেখালে, আমি বলি মৎস্য কর্মকর্তা একজন বিসিএস কর্মকর্তা। একটু শালীনতার সঙ্গে বলুন। এতে তাঁরা রাগ করে থাকলে আমি দুঃখিত। আমি মৎস্য কর্মকর্তাকে স্যার ডাকার কথা বলিনি।
গোলাপগঞ্জ উপজেলার জ্যেষ্ঠ মৎস্য কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মো. হাসিবুল হাসান বলেন, ‘ঘটনাটি ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। আমি উপস্থিত ছিলাম না, থাকলে এটি হতো না। সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা এটি ভুল করেছেন। বিয়ানীবাজার উপজেলায় ছিলাম, গোলাপগঞ্জে আমি অতিরিক্ত দায়িত্বে রয়েছি।
এর আগে ‘স্যার না বলায়’ রংপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) ক্ষুব্ধ আচরণ করেছেন এমন অভিযোগ তুলে ছিলেন বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ওমর ফারুক। ওই ঘটনার পর ডিসি চিত্রলেখা নাজনীন সেদিন দুঃখ প্রকাশ করে ওই ঘটনার ইতি টানলেও সরকারি চাকরিজীবীদের ‘স্যার’ ডাকা না-ডাকা নিয়ে এখনো চলছে আলোচনা।
স্যার ঢাকার বিষয়ে শনিবার (২৫ মার্চ) জন প্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, সরকারি কর্মচারীরা জনগণের সেবক। তাঁদের স্যার বা ম্যাডাম ডাকার কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। ভদ্রতার খাতিরে অনেকে স্যার বা ম্যাডাম ডাকেন। কিন্তু এটি ডাকা বাধ্যতামূলক নয়। কেউ যদি আপা বা ভাই ডাকেন, তাতে দোষের কিছু নেই। এতে মাইন্ড করারও কিছু নেই। সরকারি চাকরিজীবীরা জনগণের সেবক, এই চিন্তা থেকেই কাজ করতে হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন :





© All rights reserved © 2021 Holysylhet