সংবাদ শিরোনাম :
শ্রীমঙ্গলে দুই ভোট কেন্দ্রের চারজন সহকারী প্রিসাইডিং অফিসারকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি হযরত শাহজালাল (রহঃ) এর মাজার শরীফের ৭০৫তম পবিত্র ওরস এর আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি পরিদর্শন করেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার শেখ হাসিনার ৪৩তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে ইউকে ওয়েলস আওয়ামী লীগের সভা অনুষ্ঠিত শ্রীমঙ্গলে র‌্যাবের অভিযানে ইয়াবা, মদ ও পিস্তলসহ যুক্তরাজ্য নাগরিক আটক কুলাউড়ায় ভোক্তার অভিযানে ৩ প্রতিষ্টানকে জরিমানা যুক্তরাজ্যের বাকিংহাম প্যালেসে রাজপরিবারের পার্টিতে আমন্ত্রন পেলেন শ্রীমঙ্গলের অলিউল কবি কাজী নজরুলের জন্মবার্ষিকীতে বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরামের আলোচনা সভা কবি নজরুলের ১২৫ তম জন্মদিন উপলক্ষে  আলোচনা সভা আবৃত্তি ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা সিসিকের হোল্ডিং ট্যাক্স এসেসমেন্ট বাতিল, পুনরায় রি-এসেসমেন্টের সিদ্ধান্ত বিয়ানীবাজার জনকল্যাণ সমিতির ভবন নির্মাণ বাস্তবায়ন কমিটি গঠন
সিলেট দক্ষিণ সুরমায় কাশেম ও জেসমিনের পাপরাজ্য

সিলেট দক্ষিণ সুরমায় কাশেম ও জেসমিনের পাপরাজ্য

সিলেট
দক্ষিণ সুরমায় কাশেম ও জেসমিনের পাপরাজ্য

এ এ রানা::
সিলেট নগরীর দক্ষিণ সুরমার সাধুরবাজার বাঁশফালা মার্কেট এলাকার সুরমা মহল, জিঞ্জির শাহ মাজার এলাকা, পুরাতন রেলওয়ে স্টেশন (মন্দিরের পাশে), খেয়াঘাট এলাকায় চলছে জুয়া ও মাদক বিক্রি। এ নিয়ে এলাকাবাসী মূলহোতা জিঞ্জির শাহ মাজার এলাকার মৃত কালু মিয়ার ছেলে আবুল কাশেম ও তার মেয়ে জেসমিনের বিরুদ্ধে প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দায়ের করেন। কিন্তু অভিযোগ দায়েরর পর উলটো অভিযোগকারীদের উপর নেমে আসে নির্যাতন, হুমকি-ধামকি।

জানা যায়, দক্ষিণ সুরমার জিঞ্জির শাহ মাজার এলাকার মৃত কালু মিয়ার ছেলে আবুল কাশেম ও তার মেয়ে জেসমিনের নেতৃত্বে গড়ে উঠেছে এক বিশাল পাপরাজ্য। তাদের নেতৃত্বে গড়ে উঠা সাধুরবাজার বাঁশফালা মার্কেট এলাকার সুরমা মহল, জিঞ্জির শাহ মাজার এলাকা, পুরাতন রেলওয়ে স্টেশন (মন্দিরের পাশে), খেয়াঘাট এলাকায় দিনেরাতে চলে মাদক বিক্রি, ভারতীয় জুয়া তীর খেলা, ঝান্ডুমান্ডু, তিন তাস। তারা জুয়ার বোর্ড বসিয়ে প্রতিদিন হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা। প্রশাসনের এক শ্রেণির অসাধু কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে দীর্ঘদিন ধরে কাশেম ও তার মেয়ে জেসমিন এসব অবৈধ কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। তাদের গড়া এসব পাপরাজ্যে স্কুল-কলেজের ছাত্র, দিনমজুর, রিকশাচালক, স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জুয়া ও মাদকে আসক্ত হচ্ছেন। এতে অনেকেই পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছেন। জড়িয়ে পড়ছেন চুরি, ছিনতাইয়ে। বাবা ও মেয়ের গড়ে তোলা পাপরাজ্য থেকে রক্ষা পেতে স্থানীয় এলাকাবাসী একাধিক বার সিলেটের জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ প্রদান করেছেন।

সরজমিনে সাধুরবাজার বাঁশফালা মার্কেট এলাকার গিয়ে দেখা যায়, রেলওয়ের জায়গার উপর তৈরি করেছে সুরমা মহল নামক আস্তানা। সেখানে প্রকাশ্যে চলছে ইয়াবা, গাঁজা, সেবন ও বিক্রি। পাশাপাশি চলছে ভারতীয় তির শিলং, ঝান্ডুমান্ডু, নাইট তীর নামক খেলা। এসব খেলা খেলছেন অধিকাংশই তরুণ ও দিনমজুররা। বেশী লাভের আশায় স্থানীয় কলোনীর মহিলারাও জড়িয়ে পড়েছে এসব খেলায়। মাঝেমধ্যে প্রশাসন অভিযান দিলেও মূলহোতারা রয়ে যায় ধরাছোঁয়ার বাইরে।

এছাড়া আবুল কাশেম ও তার মেয়ে জেসমিনের পাপরাজ্য নির্বিঘ্নে চালাতে স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী ও প্রশাসনের অসাধু কর্মকর্তারা তাকে সহযোগিতা করছেন।

এ ব্যাপারে টার্মিনাল ফাঁড়ির ইনচার্জ আবুল হোসেন বলেন, আমরা মাদক ও জুয়ার বিরুদ্ধে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছি। কাশেম ও তার মেয়ে জেসমিনকে আইনের আওতায় আনা হবে।

দক্ষিণ সুরমার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল হাসান জানান, কাশেম ও তার মেয়ের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ রয়েছে। অনেক দিন থেকে তারা পলাতক আছে। তাদের আমরা খুঁজতেছি। কাশেম ও তার মেয়েকে আইনের আওতায় আনা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন :





© All rights reserved © 2021 Holysylhet