সংবাদ শিরোনাম :
সিলেটের বিভিন্ন সীমান্তের চোরাকারবারিদের দৌরাত্ম্যের ২য় পর্বে জৈন্তাপুর উপজেলা বড়লেখায় পুলিশের অভিযানে ২০০ পিস ইয়াবাসহ আটক ১ সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সচেতন নাগরিক ফোরামের মানববন্ধন পরিবেশ অধিদপ্তরের অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে সতর্ক থাকার আহবান চা কন্যার অজানা তথ্য নিয়ে আল ইকরাম নয়নের ভিডিও কন্টেন্ট সবজি ক্ষেতের জ্বালে আটকে পড়া দাঁড়াশ সাপ উদ্ধার দক্ষিণ সুরমা থেকে ডিবি পুলিশের অভিযানে ০৩ কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ি গ্রেফতার দক্ষিণ সুরমা থেকে ডিবি পুলিশের অভিযানে ০৩ কেজি গাঁজাসহ এক মাদক ব্যবসায়ি গ্রেফতার ডিবির অভিযানে খালিঘাট বস্তাপট্টি শরিফ ও জামালের  জুয়ার আস্তানা থেকে  খেলার সামগ্রী সহ ৩ জুয়ারী গ্রেফতার! ঈদ ও নববর্ষের টানা ছুটিতে চায়ের রাজ্যে ঢল নেমেছে পর্যটকের অবশেষে দক্ষিণ সুরমার শীর্ষ জুয়ারী কাশেমসহ পুলিশের হাতে আটক-৬, এখনো বহাল নজরুল-জামাল-অন্তরের জুয়ার প্রতারণা,
দক্ষিণ সুরমার লালাবাজারে মাসুকের শিলং তীরে সর্বস্বান্ত যুবসমাজ

দক্ষিণ সুরমার লালাবাজারে মাসুকের শিলং তীরে সর্বস্বান্ত যুবসমাজ

হলি সিলেট ডেস্ক ঃ

অবাধে চলছে মাসুকের   ভারতীয় ‘শিলংতীর’ নামক মোবাইলে খেলা। বিভিন্ন মোবাইল নেটওয়ার্কের মাধ্যমে দীর্ঘদিন থেকে এ জুয়া খেলা চালিয়ে আসছে তারা । এতে এলাকার নিরীহ ও গরিব লোকজন হচ্ছেন সর্বস্বান্ত। দীর্ঘদিন থেকে এই সংঘবদ্ধ জুয়াড়িচক্র সিন্ডিকেট গঠন করে এ জুয়ার আসর চালিয়ে যাচ্ছে নির্বিঘ্নে মাসুক ও তার সহযোগিরা  আর ও অনেকে । ভারতীয় ‘শিলং তীর’ নামে এ জুয়া খেলায় মোবাইলে গুটির টোকেন বিক্রি চক্রটি লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে প্রতিদিন। এলাকার উঠতি বয়সী তরুণ থেকে শুরু করে বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষ ক্রমেই বিপথগামী হচ্ছে। দীর্ঘদিন থেকে এ জুয়া খেলা চললেও প্রশাসন নীরব। জুয়াড়ি চক্রের সদস্যরা স্থানীয় এবং ক্ষমতাধর ব্যক্তিদের সঙ্গে যোগসাজশ করে এ অপতৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে। এলাকায় চুরি, ডাকাতি, ছিনতাইসহ অসামাজিক কার্যকলাপ বৃদ্ধি পাওয়ার আশংকা করছে এলাকার সচেতন মহল। বর্তমান সরকার মাদকের বিরোদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ ঘোষণা দিয়েছে। মাদক-জুয়াখেলা কে কোন ছাড় দেওয়া হবে না।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, লালাবাজারসহ কয়েকটি এলাকায় বিস্তৃত রয়েছে অবৈধ মাসুকের মোবাইল শিলং তীর। লালাবাজার নাজির বাজার   রশিদ পুরসহ জুয়ার মোবাইলে গুটি টোকেন কেটে যাচ্ছে এই চক্র। জুয়াড়িরা তাদের নিয়োগকৃত এজেন্টের মাধ্যমে এ জুয়া খেলা অব্যাহত রেখেছে। জুয়ার নেশায় আসক্ত হয়ে জুয়াড়িদের খপ্পড়ে পড়ে রিকশাচালক থেকে শুরু করে, ছোট ছোট দোকানদারসহ নিন্ম আয়ের লোকজন প্রতারিত হচ্ছেন। জুয়াড়িদের প্রলোভনে পা বাড়িয়ে টাকা পয়সা হারিয়ে অনেকে এখন দিশাহারা স্বল্প আয়ের লোকজন সারাদিন কষ্ট করে টাকা উপার্জন করলেও তারা ঘরে খরচাপাতি না করে রোজগারকৃত এসব টাকা দিয়ে মোবাইলে জুয়া খেলছে প্রতিদিন। এ নিয়ে তাদের পরিবারে দেখা দিয়েছে অশান্তি। জানা যায়, জুয়াড়ি মাসুক তার মোবাইলের মাধ্যমে মোবাইলে তীর খেলার টোকেন ক্রয় করে লোকজন। ১০ টাকায় ৭০০ টাকা ১শ’ টাকায় ৭ হাজার ৫শ’ টাকা, ১ হাজার টাকায় ৭৫ হাজার টাকা পাওয়া যাবে- এমন প্রলোভন দেখিয়ে তারা এ জুয়া খেলা চালিয়ে যাচ্ছে। এমন প্রলোভনে পা দিয়ে প্রতিদিন প্রতারিত হচ্ছেন অসহায় ও গরিব লোকজন। আর ‘আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ’ হচ্ছে জুয়াড়িরা। এ জুয়া খেলার প্রতিবাদে সম্প্রতি লালাবাজারসহ   এলাকাবাসী জোর প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন। কোনো কাজ হয়নি বলে জানান এলাকাবাসী।

ঘটনার সত্যতা জানতে যোগাযোগ করা হয় লালাবাজারের জুয়ারী মাসুকের সাথে বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে প্রতিবেদককে তিনি জানান, খেলতাম, তবে আজ থেকে আর খেলবো না।

এদিকে দক্ষিন সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রবিত্র হ্জ্ব শেষে কর্মস্থলে ফিরে এসে আবারো ঝটিকা অভিযান শুরু করেন।
দক্ষিন সুরমার লালাবাজারে অবাধে চলছে মাসুকের   ভারতীয় ‘শিলংতীর’ নামক মোবাইলে জুয়া খেলা, যার ফলে সর্বস্বান্ত হচ্ছে যুবসমাজ, এমন এক প্রশ্নের জবাবে দক্ষিন সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেন, আমি ছিলাম না এত দিন। এখনি জুয়ারী মাসুককে খোঁজে ধরে আনার ব্যাবস্থা করছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন :





© All rights reserved © 2021 Holysylhet